CREATIVE

Creativity is a beauty which guides you to the shore of sensitivity
Creativity is a mastery which carries the class of imaginary
Creativity is an illusion which guides you to the destiny
Creativity is the process of making a possibility into reality
 
Recreation opens up the room for new creation
Revolutionary attempt to go for a new dimension
Reveal the concepts to breed better results
Rejoice the moment with all of the feathers
 
Every good idea shakes our present scenario
Effective implementation comparing the ratio
Energy to speed up quicker than the rest
Efficiency to hold the breath and deliver the best
 
Ability to make the possibility a reality
Agility of spirit and remaking the history
Anarchy behind and the power to cherish
Awaking the power within and flourish
 
Twinkling eyes with full of dream
The neuron is playing inside to beam
The master of all art lies under creativity
The power to know, ignite it and reach the destiny
 
Inside every one lies the power
It’s our wish which can bring out the better
Immense strength to know and explore
Ignite the power within and knock the door
 
Vacuum soul needs to capture the spirit
Variety of fragrances will fill up every bit
Vow to the positive attitude and inspire the rest
Very best wishes for all and thumbs up to the best
 
Every aspect to take under consideration
Energy to demonstrate and gear up owns motivation
Enigma to resolve with the intellectual power
Exploration of hidden talent is a must for the doer

তুই

দূর হতে চেয়ে রই তোর দিকে

একনয়নে

প্রতীক্ষায় আমি, কখন তুই

এসে পাশে বসবি।

এত বলি তোর সাথে কথা

কেন বুঝিস না

কি বুঝাতে চাই তোকে

নির্বোধ আমি অকারণে।

তুই কি বুঝিস না এর মানে

আমি যা বুঝাতে চাই তোকে

বল তুই এমন কেন?

বলতে গিয়ে বাধা পড়ে

আমার মনের ভাষা

শুধুই তোর কারণে।

বন্ধু ভেবে বসে আছিস বলে

দুঃখে আমার মনটা পুড়ে,

আশাহত এই আমি

চেয়ে রই শুধুই তোর পানে

তোকে বলতে না পেরে

এই কথাটি- ভালোবাসি আমি তোকে।

 

n64030283062_1837696_1580711

——[Please do not use this writing without my permission]——-

© All rights reserved by

█║▌█║▌║▌║║█║▌║║│█│║▌║││█│║▌║│█│║

Md. Adib Ibne Yousuf [adib10mist@gmail.com]

 

*বন্ধু তানজিল কে উৎসর্গ করলাম *

প্রতীক্ষা

সেদিনের সেই বিকেলবেলা
হাঁটছিলাম আমি একেলা
হঠাৎ হয়ে গেল দেখা
দুজনে হল চোখাচুখি
এসে দাঁড়ালাম মুখোমুখি
চোখের পলক আর পড়ে না।

সেই থেকে শুরু কথা বলা
আর শুরু ভালো লাগা
দুজনে মিলে ঘুরতে যাওয়া
পাশাপাশি বসে দেখে যাওয়া
তোমার ঐ হাতের স্পর্শে
শিহরিত আমি, সাহসে
বলে ফেলি- ভালোবাসি তোমায়।

তারপর আমার প্রতীক্ষার প্রহর গোনা
কবে তুমি বলবে,
তুমি আমার প্রেমে দিওয়ানা
সে আশায় বসে থেকে থেকে
একদিন তুমি আমার কাছে এসে
বল্লে-‘চল হারিয়ে যাই
তোমার প্রেমের ভেলায় ভেসে
ঐ দূর অজানায়।’

তারপর হতে রাতজাগা এই আমি
তোমার স্বপ্নে বিভোর।
সেই তুমি আমায় ছেড়ে
চলে গেলে দূরদেশে।
আজ তোমার আশায় থাকি
এই পথ চেয়ে-
বসে আছি আমি একেলা
দিগন্তের দিকে চেয়ে
ঐ দু’নয়নে।

১৩/০৮/২০১১

আমার আলো

১৯ বৎসর ১ মাস ১৭ দিন
কিভাবে এগুলো হল মহাকালে বিলীন।
বুঝিনি আমি বুঝিনি একবারও
এক বসন্ত পেরিয়ে আরেক বসন্তে
এখন আমি তরুন যুবা।
সেদিনের সেই ছোট্ট শিশু
যে এসেছিল পৃথিবীকে আলো করতে
আলোয় আলোকিত করে দিতে
আজ এতগুলো বছর পর মনে আমার-
প্রশ্ন জাগে
সে কি পেরেছে?
কালকের দিনটা কেমন হবে?
থাকব কিনা এই ধরাতে
এক মিনিটের নাই ভরসা
মনে আমার বড় আশা
পারব কি আলো জ্বালাতে ?
যদি চলে যাই কালকে ওপারে
রেখে যাব আলো সকলের তরে
করেছি পণ, দিয়ে দেব জীবন।
জ্বেলে যাব আলো সময়ের প্রয়োজনে
জ্বলে রবে আলো শেষ দিনতক,
মহাকাল স্বরিবে মোরে
আজ হতে কাল কিয়ামত।

পবিত্র লাইলাতুল বরাতের দিন লেখা

মনের ও গহীনে তুমি

কেটে গেছে আটটি বছর
এ স্কুলেতে
আমি তো পারবোনা
আজিকার এই বেদনাকখনো ভুলিতে,
বিদায় বিরহ দিনে চারদিকে কোলাহল
বিদায় ও শুভেচ্ছাবাণী।
যেমনটি ছিল স্কুল জীবনের ক্লাসের কোলাহল
আর শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পবিত্রবাণী,
দু’চোখে জল এসে যায় ছেড়ে চলে যেতে এ স্কুল,
যখন ছোট ভায়েরা দিয়ে যায় আমায়
একটি রজনীগন্ধা ফুল।
আর কি পাব সেই স্কুল জীবন?
যতদিন যাবে আমি ততদিন মনে রাখব স্মৃতি
মনের ও গহীনে।
নিয়েছিলেম ম্যাডাম ও স্যারদের কদমবুচি
তাঁরাও শোনালেন মোরে কথারও বুলি।
“আশির্বাদ করি এ+ পাবে এস.এস.সি-তে”
-এ কথাটি বলেছেন এক শ্রদ্ধেয় স্যার
সজল নয়নে
আর অশ্রুসিক্ত ভারে। দু’চোখে জল
নীরবে আমি
এক পাক ঘুরে এলাম পুরো স্কুলটা
ভাবলাম এইতো সেদিন
যেদিন পড়েছিলাম,বসেছিলাম,হেসেছিলাম
এ ক্লাসটাতে।এ স্কুলটাতে।এ মাঠটাতে।
ফেলে আসা সেই স্মৃতিগুলো
হাতড়িয়ে ফিরি আমি,আর কি পাব সেই হারানো ক্যাম্পাস?
সেই কোলাহলময় আড্ডা?
ভুলতে পারব কি এই বিরহ দিনটি?
যতদিন যাবে মনে রাখব একে
চিরদিন ধরে
তবুও চলে যেতে হবে,তবুও এগিয়ে যেতে হবে
জীবনের গতিতে তাল মিলিয়ে।
জীবনও সায়াহ্নে আমি স্মরিব সর্বদা
এই স্বর্ণালী স্কুল জীবন।
চাইনি কিছুই
শুধু পেয়েছি আদর্শ শিক্ষা,
যা আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ ধন
একে পুঁজি করে পাব একদিন
কোনো সফলবাণী,
অথবা কোনো বিমর্ষ বিলাপ।
এই ধানমণ্ডি গভঃ বয়েজ হাই স্কুল-এ
আাবার আসিব ফিরে আমি
কতক সতীর্থ নিয়ে।
স্কুলের শেষদিনে চোখের জল ফেলে
বিদায় জানালাম এই স্কুল লাইফটাকে
আর কবিতা লিখলাম কেননা
ইতিহাস কথা বলে কবিতার ভাষায়।
স্মরিব আমি একে
গেঁথে দেব আমার মনের ও গহীনে বলিব
হে স্কুল লাইফ তুমি শুধু মোর মনের ও গহীনে।

এক অনিশ্চয়তার সূত্র

আমাকে টিকতেই হবে
কোথায় জানি না!
বাঘা বাঘা সব ছেলের দলে
আমি একা অপদার্থ-
মস্তিষ্ক নিয়ে যুদ্ধ করে
চলি অনন্তকাল ধরে।
লড়াই করে চলেছি খাতা-
কলমের সাথে একঘেয়েমি
লাগে নতুনত্ব খুঁজি,
নতুন জায়গায় যেতে ইচ্ছে
করে আমার।
ভাবি আবার কলেজে ভর্তি
হব। অনন্তকাল ধরে
করে যাবো ইন্টিগ্রেশন আর
জ্যামিতি। পড়ে যাব রসায়নের
সব নাম না জানা বিক্রিয়া।
কিছুই মনে নেই আমার!
কি অপদার্থ আমি!
মাথার ভিতরের ঘুনপোকাটি
কুটকুট করে খেয়ে চলেছে
মগজটা। কিছুই মনে নাই আমার!
মেডিকেল, সে তো আমার নয়,
বুয়েট হলো না আর,
কুয়েটে অপদার্থ সব
তকদীরে ছিলো বলে হইনি।
তাই সাইন ফাংশনের গ্রাফের
মত জীবন আমার
বয়ে চলেছে নিরবধি।
অথবা একঘেয়েমি পড়া আমার
tan x ফাংশনের মতই
হয়ে উঠে অসীম।
জীবনের ধারাটা করে ফেলি
অজান্তেই সসীম।
অসীমতটের মত চিন্তা করে
অকূল পাথারে পড়েছি আমি
মা-বাবার চোখ রাংগানি
ভয়ে আমি কাঁপি না
আর, কেন জানি না!
ষোল নং অংকটা তাই
মাথা হতে আসছে না
বলেই খাতা জুড়ে
লিখে চলেছি জীবনের
মহাকাব্য- যেখানেই
আমার সুখ-দুঃখ।
তাইতো আজ ব্যর্থ মনোবল
নিয়ে শক্তি সঞ্চয়ের
তাগিদে চারদিকে যখন
সুনসান নীরবতা, তখন
জীবনের পরীক্ষার হলে
প্রতিপাদন করে চলেছি
এক অনিশ্চয়তার সূত্র।