যখন আপনি সমাজের সিরিয়াস কিছু ইস্যু নিয়ে কথা বলবেন …………

সমস্যা হচ্ছে আপনি যখন সমাজের সিরিয়াস কিছু ইস্যু নিয়ে কথা বলবেন, সলিউশনের উপায় বের 
করার চেষ্টা করি, তখন আশপাশের মানুষ ছুটে আসে। ছুটে আসে আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে। ডিমোরালাইজ 
করে। আসলে যারা সমস্যায় ডুবে আছে, তাদের শত চেষ্টাতেও বুঝানো কষ্টকর হয়ে যায়। যাদের মূলেই 
প্রবলেম, তারা তখন উপরের শাখাপ্রশাখা কি বুঝবে?! 

আর একজন মানুষ একটা জিনিস যা চিন্তা করে, যেভাবে চিন্তা করে, আরেকজন মানুষ তেমন ভাবে 
চিন্তা করে না। দুইটি চিন্তা এক লেভেলে আসাটাই হল সবচেয়ে Toughest Part. নারী পুরুষের ফিতনা 
নিয়ে যা হচ্ছে এই সমাজে তা নিয়ে অনেক কথা বলা যায়, লিখা যায়। কিন্ত যখন কিছু লিখা হয় তখন 
মানুষজন এসে আজাইরা প্যাঁচাল পারা শুরু করে মুল জিনিস থেকে সরে এসে, আশপাশ ফিত্নাহভরা 
দেশ থেকে উদাহরণ নিয়ে এসে আমাদের পরিস্থিতির সাথে বিচার করে বসে। 

হিকমাহ! হিকমাহের প্রয়োজন।

 দুঃখের বিষয় হচ্ছে ফেইসবুকে দাওয়াহ দেয়া আর উলুবনে মুক্ত ছড়ানো একই কথা। অনেক বড় 

ভাইবোন খুব সুন্দর সুন্দর লিখা লিখেন। যারা বুঝার তারা বুঝে, যারা বুঝে না তারা বুঝেই না। বাস্তবে 

কাজ করতে হবে, সমস্যা হল একটাই এখানকার মত অনেক লোকের কাছে মেসেজ পৌঁছানো সম্ভব 
হয় না। কিন্তু যখন ফেইসবুক ছিল না, তখন কিন্তু ঠিকই ইসলাম ছড়িয়েছে। সবই আল্লাহর ইচ্ছা। 
বাস্তব জগতে কাজ করার মধ্যে একটি ভালো লাগা কাজ করে, নিজের মনে একটা প্রশান্তি আসে, 
নিজেকে অনেক ডেভেলপ করা যায়।

 আল্লাহ্‌ আমাদের সবাইকে এই অবাস্তব জগত ছেড়ে বাস্তব জীবনে অনেক অনেক কাজ করার তৌফীক 
দান করুন। আমিন।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s