একটি নির্বাক সকালের গল্প

পূর্বকথাঃ

যে গল্পটি এখন আপনারা পড়ছেন এটি রাজধানী শহরের একটি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের (ভুল বললাম ইন্সটিটিউট) আবাসিক ছাত্রাবাসের একটি সকালবেলার প্রতিচ্ছবি। আশা করি আপনারা এটি পড়ে আনন্দ পাবেন।

দৃশ্য ১

হলের একটি রুম। দরজাটি খুলে গেল। চারটি বেডে চারটি ছেলে ঘুমিয়ে আছে। তিনটে মশারি, একটি মশারি নাই। মশারিবিহীন বেডের ছেলেটি উঠে গেল। ঘুমকাতর চোখে আশেপাশে তাকিয়ে দেখে অন্য তিনজন ঘুমিয়ে আছে। তারপর দেখে মোবাইলের ঘড়ির দিকে। কি যেন ভেবে আবার শুয়ে পড়ে ছেলেটি।

দৃশ্য ২

আরেকটা রুম। হঠাৎ কর্কশ আলার্ম বেজে উঠল। কিন্তু অ্যালার্মের মালিকের কোনও খবর নাই। ইতোমধ্যে বাকি তিনজন উঠে গেছে। একজন দৌড়ে বাথরুমে গেল। আর একজন বিছানায় দুই হাত তুলে আড়মোড়া দিচ্ছে। আরেকজন মশারি নামিয়ে কার্নিশের দিকে একবার তাকাল কিছুক্ষন; তারপর ঘুমন্ত ব্যাক্তিটিকে উঠানোর চেষ্টা করছে। ২য় ব্যক্তি কসরত করার পর বাথরুমের দিকে গিয়ে দরজা চাপড়াতে থাকে। অনেক চাপড়ানোর পর ১ম ব্যক্তি exercise করতে করতে বাথরুম হতে বের হয়। ২য় ব্যক্তি ওতে ঢুকে পড়ে। ৩য় ব্যক্তি ঘুমন্ত ব্যক্তিকে ডাকতে ব্যর্থ বাথরুমের দিকে পা বাড়ায়………

দৃশ্য ৩

চারটা বেডেই মশারি ঝুলছেচারটা ফ্যানই বন্ধ। অথচ দেখুন কি গরমটাই না এখন পড়ছে। একজন আবার কম্বল গায়ে দিয়ে ঘুমন্ত। অপর পাশের বেডের মালিক পায়ের উপর পা তুলে আরামে ঘুমন্ত, পাশে তার ল্যাপটপ, সেটি আবার খোলা। আরেকজন মোবাইল এর হডফোন কানে দিয়ে ঘুম। পরের বেডটা খালি। হয়তোবা বেডের বাসিন্দা টয়লেটে অবস্থান করছেন। কর্কশ অ্যালার্ম বেজেই চলেছে ল্যাপটপ মালিকের; কিন্তু তার কোনও পরিবর্তন নাই। কম্বল জড়ানো ব্যক্তিটি উহা শুনতে পাচ্ছেন কিনা বলা জাচ্ছে না। আর ৩য় ব্যক্তিটি তো হেডফোন লাগানো, তিনি কিভাবে শুনবেন? অ্যালার্মটা অনেখহন ধরে নিজের অস্তিত্ব জাহির করে চলল। যখনি ওটা বন্ধ হল ঠিক তখনই ৪র্থ ব্যক্তি টয়লেট হতে বের হলেন।

দৃশ্য ৪

প্রথম রুমের (প্রথম দৃশের জাগ্রত ব্যক্তির) একজনের অ্যালার্ম বীজে উঠে। একজন উঠে লুঙ্গি ঠিক করতে করতে টয়লেটে এগোয়। আরেকজন উঠে ঘড়ির দিকে তাকিয়ে পরিহিত থ্রীকোয়ার্টার এর উপর ফুলপ্যান্ট ঢুকিয়ে দিয়ে উপরে ফুলশার্ট পরে; তারপর হাতমুখ ধুয়ে চেয়ারে ঝুলতে থাকা ব্যাগটা কাঁধে তুলে নিয়ে ঝড়ের বেগে দরজা দিয়ে বের হয়ে যায়। ২য় ব্যক্তি টয়লেট হতে বের হয়ে দেখে ৩য় ব্যক্তি রুমে নাই। ৪র্থ ব্যক্তি ততোক্ষণে উঠে টয়লেটে ছলে গিয়েছেসময় কাটতে থাকে। ১ম ব্যক্তি এতক্ষনে অ্যালার্মের ডাকে জেগে উঠে; দেখে ২য় ব্যক্তি উধাও। ৪র্থ ব্যক্তি টয়লেট হতে বের হয়ে বিছানায় বসে আছে। ঘুম এখন যায়নি তার। ১ম জন টয়লেটে যায়; বের হয়ে ফ্রেশ হয়ে প্যান্ট শার্ট পর বের হয়ে যায়। ৪র্থ ব্যক্তি নিজের ধ্যানেই বসে থাকে। সম্বিৎ ফিরে পায় না…………

পুনশ্ছঃ শুনলে অবাক হবেন এই গল্পের ঘটনাটি ঘটেছে মাত্র ১০ মিনিটে; গল্পের চরিত্ররা মোটেই কাল্পনিক নন। বরঞ্চ একটু বেশিই বাস্তবিক। তাদের বিশ্ববিদ্যালয় গমনের অবস্থা মোটেই সুবিধাজনক নয় (ক্যাম্পাস কাছে বলে তারা এই অবহেলাটুকু করেন), বিনিময়ে কি হচ্ছে? তাদের percentage of attendance এর অবস্থা মোটেই ভাল নয়। আমি এই ঘটনার আলোকে নাটক বানাব বলে ঠিক করেছি, পাঠকদের মধ্যে যারা এর চরিত্র তারা আপনাদের মতামত দয়া করে আমাকে জানাবেন। সবে শুরু করলাম; আর অনেক এপিসোড লেখার ইচ্ছা আছে। লেখলে অবশ্যই প্রকাশ করব। একটা উক্তি দিয়ে এই গল্পটা শেষ করতে চাই “Early to bed and early to rise, makes a man healthy,wealthy and wise”.